আগস্টে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে যাচ্ছে ভারত!

cricket-south-africa-hopeful-that-india-is-willing-to-play-in-august

গোটা ক্রিকেটবিশ্বে করোনার ছাপ সুস্পষ্ট।  ফাঁকা মাঠ, গ্যালারি শূন্য। এ ছবির উল্টোপুরাণ আশা করা যায় খুব তাড়াতাড়ি দেখা না মিললেও । আশার বুক বেঁধেছে ক্রিকেট মহল। মারণ ভাইরাস দেশ থেকে বিদায় নেবে কবে, কেউ জানে না। কিন্তু অবস্থার উন্নতি ঘটলে ক্রিকেট শুরু করার ছক কষল ফেলল ভারতীয় বোর্ড।

ভারতে করোনার দাপট যদি কমে, তা হলে বর্ষা শেষে ক্রিকেট শুরু করে দিতে পারে ভারত। আগামী অগাস্টের শেষে দক্ষিণ আফ্রিকায় তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ আছে। সেই সিরিজ খেলতে যেতে পারে ভারত। দক্ষিণ আফ্রিকা বোর্ডের তেমনই দাবি। তাদের বক্তব্য হল, ভারতীয় বোর্ড করোনা প্রকোপ কমলে আগস্ট শেষের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে আসার আগ্রহ দেখিয়েছে। শুধু তাই নয়, ভারতীয় বোর্ডের সিইও রাহুল জোহরিও বলেছেন যে, বর্ষা শেষে ক্রিকেট মরশুম শুরু করার আশা তিনি রাখেন।

'প্রত্যেকেরই অধিকার আছে নিজেদের সুরক্ষা নিয়ে ভাবার। আর আমাদের সেটার সম্মান করতেও হবে। ভারত সরকার যেভাবে নির্দেশিকা দেবে, আমরা সেভাবে চলব। আমার মতে, বর্ষা শেষেই একমাত্র ক্রিকেট মরশুম শুরু হতে পারে,' বৃহস্পতিবার এক অনলাইন প্রোগ্রামে বলে দিয়েছেন জোহরি। পাশাপাশি আইপিএল নিয়েও আশাবাদী বোর্ড সিইও। একটা মত ক্রমশ জোরাল হচ্ছে যে, আগামী অক্টোবরে-নভেম্বরে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নাও হতে পারে। আগামী ২৮ মে আইসিসি’র এক্সিকিউটিভ বোর্ডের বৈঠক আছে। সেখানেই নাকি সিদ্ধান্ত হয়ে যাবে বিশ্বকাপ। বলা হচ্ছে, বিশ্বকাপ না হলে সেই সময় আইপিএল হতে পারে। কোথাও কোথাও এটাও ছড়াচ্ছে যে, আইপিএলের একটা খসড়া সূচি নাকি ইতিমধ্যে ঠিক করে ফেলেছে বোর্ড। আগামী ২৫ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হয়ে চলবে ১ নভেম্বর পর্যন্ত।

কিন্তু পুরোটাই দেশের করোনা পরিস্থিতির উপর নির্ভরশীল। করোনা প্রকোপ কমলে তবেই এ জিনিস সম্ভব। জোহরি নিজেও বলে দিয়েছেন, “আশা করছি, অবস্থার উন্নতি ঘটবে তত দিনে। সেটা হলে আমাদের হাতেও বিকল্প আসবে। তখন সেই মতো আমরা সিদ্ধান্ত নেব।” করোনা পরবর্তী সময়ে আইপিএল কীভাবে হবে না হবে, সেই চর্চার মধ্যেই বৃহস্পতিবার আবার দক্ষিণ আফ্রিকা বোর্ড বলে দিল যে, ভারতীয় বোর্ড তাদের দেশে আগস্ট শেষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ নিয়েও আগ্রহী। দক্ষিণ আফ্রিকা বোর্ডের আপৎকালীন সিইও জ্যাক ফওল বলে দিয়েছেন, সিরিজটা করতে ভারত আগ্রহী। 'আমাদের দু’দেশের মধ্যে টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলা নিয়ে যে চুক্তিটা আছে, সেটা ভারত রক্ষা করতে চাইছে। যদি এরপর সিরিজ স্থগিত হয়ে যায়, তা হলে আলাদা কথা,' বলে দিয়েছেন ফওল।

শুধু ফওলই নন, দক্ষিণ আফ্রিকা বোর্ডের ডিরেক্টর অব ক্রিকেট গ্রেম স্মিথ বলে দিয়েছেন, দর্শকশূন্যভাবে সিরিজ হলে লজিস্টিক্যাল সমস্যাও সে ভাবে হবে না। স্মিথ বলে দেন, 'কেউ জানে না শেষ পর্যন্ত কী হবে। কিন্তু সামাজিক দূরত্ব মেনে, স্টেডিয়াম দর্শকশূন্য রেখে খেলা করা যেতে পারে। ভারতীয় বোর্ডের সঙ্গে আমাদের কথাবার্তা চলছে।'

Fri 22 May 2020 17:40 IST | ওয়েব ডেস্ক