পূর্ব মেদিনীপুর জেলা সভাপতির পদ থেকেও সরানো হল শিশির অধিকারীকে।

জল্পনা আরও চওড়া হচ্ছে, তা হলে কী এবার শুভেন্দু অধিকারীর কথাই ঠিক হতে চলেছে---ঘরেও পদ্ম ফুটবে!

গতকাল অর্থাৎ মঙ্গলবার দিঘা শঙ্করপুর উন্নয়ন পর্ষদের দায়িত্ব থেকে সরানোর পর আজ আবার পূর্ব মেদিনীপুর জেলা সভাপতির পদ থেকেও সরানো হল শিশির অধিকারীকে। তাঁর পরিবর্তে দায়িত্বে এলেন সৌমেন মহাপাত্র। জেলা কো-অর্ডিনেটরের পদেও রদবদল হয়েছে। সেখান থেকে সরানো হয়েছে অধিকারী পরিবারের ঘনিষ্ঠ আনন্দ অধিকারীকে। তবে এখনও চেয়ারম্যান পদে  বহাল রইলেন শিশির। নতুন জেলা সভাপতি সৌমেন মহাপাত্র জানিয়েছেন, 'শিশির অধিকারীর সুস্থতা কামনা করি। তিনি প্রণম্য নেতা।' 

এ প্রসঙ্গে শুভেন্দু অধিকারী বলেছেন, 'আমি চাইব আমার বাবা মা সুস্থ থাকুক। আমি প্রাক্তবয়স্ক, সচেতন, তাই কোন দল করব সেটা আমার ব্যাপার। আমার বাবা সেটা ঠিক করে দেন না।'

রাজনৈতিক মহল বলছে, শুভেন্দু কাণ্ডের মৌনতার কারণেই অধিকারীদের ক্ষমতা ছাঁটা হচ্ছে। অখিল গিরি বুধবার বলেছেন, শিশির অধিকারী ডিএসডিএ-এর বৈঠক ডাকছিলেন না। কাজে গতি আনতেই এই রদবদল। আজও তিনি বললেন, সাংগঠনিক কাজ দুর্বল হয়েছিল শিশিরবাবু অসক্রিয় থাকায়। সেই কারণেই এই রদবদল।

অশীতিপর রাজনীতিক কাঁথির অধিকারী পরিবারের কর্তার সাংসদ পদের মেয়াদের এখনও প্রায় সাড়ে তিন বছর বাকি। অতঃপর এবার তিনিও গেরুয়া শিবিরের দিকে পা বাড়াবেন! জল্পনা আরও তীব্র হচ্ছে। উল্লেখ্য, ডিসেম্বরে ভরা সভা থেকে শুভেন্দু দাবি করেছিলেন, তাঁর ঘরেও পদ্ম ফুটবে। তিনি এমন দাবি করার পরদিনই বিজেপিতে যোগ দেন তাঁর ভাই সৌমেন্দু। গতকাল মুকুল রায়ও ইঙ্গিতপূর্ণ বক্তব্য রেখেছিলেন। তিনি বলেছিলেন, শিশির অধিকারীর বিজেপিতে আসা সময়ের অপেক্ষা। কারণ শিশির অধিকারীর দুই ছেলে ইতিমধ্যে গেরুয়া শিবিরে যোগ দিয়েছেন।

Wed 13 Jan 2021 15:35 IST | ওয়েব ডেস্ক