সম্ভ্রমের আড়ালে আমাদের লজ্জা

যে কোনও প্রাকৃতিক অথবা মেনমেড সঙ্কটে যৌনকর্মী মহিলার বেঁচে থাকার সমস্যা গুরুতর হয়ে ওঠে। অতিমারিতে তো আরও ভয়াবহ।

সঙ্কটে অনিঃশেষের গান

আলঙ্কারিক, আত্মকেন্দ্রিক 'সামাজিক দূরত্ব' নির্মাণ নয়, স্বাস্থ্যবিধির সতর্কতাকে গুরুত্ব দিয়ে মানুষের সঙ্গে মানুষের নিবিড় সংযােগ বাড়িয়ে তুলছেন এইসব সমাজ দিশারী

অনভিপ্রেত রাজনৈতিক সংঘাত

হুর ডিরেক্টর জেনারেল টেড্রস আধানম গেব্রেয়েসাস: পৃথিবী আর কখনও ঠিক আগের অবস্থায় ফিরে যাবে না। পরিবর্তিত বিশ্বে অবশ্যই এক 'নিউ নরমাল' বা নতুন ধরনের 'স্বাভাবিক অবস্থা' মেনে নিতে হবে আমাদের

বিবেকের সজল উচ্চারণ

ভারতের পঞ্চশীল নীতিধর্মের তালিকায় স্বদেশ-বিদেশ দুই-ই সমান।একারনেই আজ নিজে করোনার বিরুদ্ধে যেমন লড়ছে, তেমনি বিপন্ন বিশ্বের ২১৩ দেশের ২,২৫২,৬৫১ মানবসন্তানের দিকে তাকাচ্ছে।

বুকের উপর ছোরা, মুখ খুলবে কে?

পুষ্ট করে তোলে। ভাগলপুর, মিরাট, আহমেদাবাদ, বরোদা, হায়দ্রাবাদের একমুখী দাঙ্গার পর দাঙ্গার পেছনে ও সামনে ভেদাভেদের রাজনীতি ও অর্থনীতির সহাবস্থান ও সহযাত্রার কলঙ্কিত কৌশল কি প্রমাণ করে না, মুখ বদলেছে, বাড়ছে মুখোশ? ওই নিষ্ঠুর ও নৃশংসদের কবলে পড়ল আধুনিক দিল্লিও!

আমাদের  ঘুম ভাঙানিয়া

রাজা-প্রজা, যোদ্ধা সবাই বইয়ের  একান্ত, একাত্ম প্রেমিক! যে-প্রেম দাবি করে স্পর্শ, গন্ধ আর মৌন অমৌন বিশ্বাস। বই তবে আমাদের অনন্ত যৌবনের দূত! হ্যাঁ, বেঁচে থাকার, বাঁচিয়ে রাখার শাশ্বত ঘুম ভাঙানিয়া।

ট্রাম্পের মন্তব্যে জাতি ক্ষুদ্ধ, বাণিজ্য চুক্তি নিয়ে ঘোর সংশয়

'ভারতে আমরা সুব্যবহার পাই না', ট্রাম্পের মন্তব্যে বাণিজ্য চুক্তি নিয়ে  ঘোর সংশয় । কোথায় গেল শাসকের মেরুদন্ড ? কন্ঠে নেই কেন বিদ্রোহ ?

বোতলবন্দি দৈত্য অথবা শাসকের ইচ্ছা

সিএএ-র মতো নির্বোধ আইন আত্মঘাতী হাতিয়ার ছাড়া আর কী?

অখিলেশ কন্যার অভিষেক

চতুর্দশী টিনা বন্ধুদের সঙ্গে সামিল হল লখনৌতে সিএএ বিরোধী সভায়

নয়া নাগরিক আইন নিয়ে চিনের কপট উদ্বেগ, লক্ষ্য ভারতে অস্থিরতা বাড়িয়ে তোলা

চিন চায় ভারতীয় মূল ভূখন্ডে অস্থিরতা। এখানে পাকিস্তান ও ওয়াশিংটনের অভিপ্রায়ের সঙ্গে তার কোনও তফাত নেই। তাই মুখে সে বলবে সিএএ অমানবিক, কিন্তু মনে মনে চাইবে বিতর্কিত, বৈষম্যময় আইনটির সর্বপ্রয়োগের প্রচেষ্টা আর তাকে রোখার লড়াই থেকে ভারতীয় সমাজে, রাজনীতিতে অস্থিরতা মাথাচাড়া দিক