এক চিমটে নুনের কেরামতি 

world-iodine-defficiency-day-2020-ideal-salt-intake-tips-according-to-age-and-health

নুনের সঠিক পরিমাণ রান্নার স্বাদ বাড়াতে যেমন প্রযোজ্য তেমনি মানুষের জীবনধারণে অন্যতম প্রয়োজনীয় উপাদান হল লবণ। নিয়ম মেনে পর্যাপ্ত পরিমাণে আয়োডিনসমৃদ্ধ নুনই পারে আপনার শরীর সুস্থ রাখতে।আবার বয়স ভেদে লবণের পরিমান হেরফের হলে বিপদ বাড়তে পারে । ছোট থেকে বড়ো সকলেরই শরীরে আয়োডিন ঘাটতি দেখা যেতে পারে । ওয়ার্ল্ড আয়োডিন ডেফিসিয়েন্সি ডে-তে কোন বয়সে কতটা আয়োডিন বা আয়োডিন সমৃদ্ধ লবণ প্রয়োজন তারই হদিস দিলেন ডক্টররা ।
গর্ভবতীকালে মহিলাদের শরীরে আয়োডিনের চাহিদা বাড়তে থাকে। কারণ গর্ভস্থ সন্তানের  মধ্যে তা সরবরাহ হয়। ভ্রূণের মস্তিষ্ক বিকাশে আয়োডিনের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ। গর্ভবতী মহিলাদের প্রথম সপ্তাহ থেকেই আয়োডিন ও থাইরয়েড হরমোনের ক্রমবর্ধমান চাহিদার জেরে অজান্তেই মহিলাদের শরীরে আয়োডিনের ঘাটতি দেখা যায়। সতর্ক না থাকলেই গর্ভস্থ সন্তানের মানসিক স্বাস্থ্য গঠনে নানা সমস্যা দেখা দেয়।  এই সময় শরীরে আয়োডিনের যথাযথ মাত্রা বজায় রাখাটা খুবই গুরত্বপূর্ণ। 

হু জানাচ্ছে, গর্ভবতী মহিলাদের জন্য রোজকার আয়োডিনের চাহিদা (২৫০ মাইকোগ্রাম) পূরণ করা আবশ্যক। 
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে শৈশবে ব্রেন ড্যামেজের মূল কারণ হল শরীরে আয়োডিনের ঘাটতি। এর জেরে ছোটবেলা থেকে পড়াশোনাসহ একাধিক ক্ষেত্রে দুর্বল হয়ে পড়ে শিশুরা। সন্তান ভূমিষ্ট হওয়ার পর প্রথম দু'বছর পর্যন্ত বাচ্চার ব্রেন ডেভেলপমেন্টের জন্য আয়োডিন খুব গুরুত্বপূর্ণ। হু ও আয়োডিন গ্লোবাল নেটওয়ার্ক-এর মতে ৬-১২ বছরের জন্য শরীরে ন্যূনতম ১২০ মাইক্রোগ্রাম আয়োডিন দরকার হয়। 

মাঝবয়সিদের শরীরে বাসা বাঁধে ডায়াবেটিস ও উচ্চ রক্তচাপের মতো একাধিক রোগ। এ ক্ষেত্রে শরীরে সোডিয়াম গ্রহণের মাত্রা বজায় রেখে এই রোগগুলিকে নিয়ন্ত্রণ করা যায়। বর্তমানে বাজারে সোডিয়ামের মাত্রা কম আছে এমন নানা লবণ পাওয়া যায়। উচ্চ রক্তচাপ ও নানা রোগ যাতে নিয়ন্ত্রণে থাকে, সে কথা মাথায় রেখেই এই লবণ তৈরি হয়। তাই সঠিক নিয়ম মেনে এই লবণ গ্রহণ করলেই রোগ নিয়ন্ত্রণে থাকে। 

বয়স্কদের জন্য কম মাত্রার সোডিয়াম সমৃদ্ধ লবণ উপযোগী। কিন্তু এ ক্ষেত্রে চিকিৎসকদের সঙ্গে পরামর্শ করে নেওয়া খুব জরুরি। কারণ অনেকেরই বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে শরীরে জলের মাত্রাও কমতে থাকে। এর জেরে রক্তে সোডিয়ামের পরিমাণও কমতে থাকে। এ ক্ষেত্রে চিকিৎসকদের পরামর্শ মেনে যথোপযুক্ত আয়োডিন গ্রহণ করতে হবে। 

এক চিমটে আয়োডিনসমৃদ্ধ লবণ আমাদের শরীরে আয়োডিন ঘাটতির জেরে তৈরি নানা সমস্যার সমাধান করতে পারে। তাই নিয়ম মেনে সঠিক ভাবে পর্যাপ্ত পরিমাণ আয়োডিনসমৃদ্ধ নুন খেতে হবে । এটি শরীরের পাশাপাশি মস্তিষ্কের বিকাশেও উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করে। 

Wed 21 Oct 2020 15:42 IST | ওয়েব ডেস্ক