ঘরোয়া পদ্ধতিতে পায়ের পাতা আর গোড়ালি ফাটার নিরাময় 

ফাটা গোড়ালি লুকেতে শুধু মোজা কেন? সমস্যা সমাধানে অবর্থ্য ঘরের তৈরি প্রলেপ।

দুধ ও ফলের রসের পর মুরগির মাংসেও আর্সেনিক

খাবারের বিষক্রিয়া নিয়ে সাবধান করলেন গবেষকরা

খাবারের সতর্কতা!

খাবার জন্য বাঁচা, নাকি বাঁচার জন্য খাওয়া। এই বিতর্ক না, বরং কিছু খাবার খাওয়ার সঠিক নিয়ম জানা থাকলে আখেরে লাভবান হওয়া যায়।

দাঁতের ব্যথা কমাতে বাড়ির তৈরি ভেষজ মিশ্রণ

আধা চামচ নারকেল তেল, আধা চামচ লবঙ্গের গুঁড়োর ম্যাজিক।

ডায়বেটিক দাওয়াই বাসি রুটি

হাইপারটেনশন থেকে ডায়াবিটিস, নিয়ন্ত্রণে রাখুন দু’টো বাসি রুটি খেয়ে!

কোমর ও উরুর মেদে নাজেহাল? এই ক’টা উপায়েই ঝরবে ফ্যাট

মেদ কমাতে নিয়মমাফিক ডায়েটের সঙ্গে রাখুন দরকারি শরীরচর্চা।

ত্বককে সতেজ ও উজ্জ্বল রাখতে চান? দুধের থেকে ভাল আর কী আছে...

ক্রিম বা কসমেটিক্সের জন্য খরচ হয় প্রচুর৷দুধ দিয়ে প্রাকৃতিক উপায়েই ত্বকের জেল্লা বাড়াতে পারবেন সহজেই৷শুষ্ক ত্বককে সতেজ রাখতে, ফেসপ্যাক হিসেবে, ক্লিনজার, ত্বকের দাগ মেটানো ইত্যাদি সব ক্ষেত্রেই দুধ ব্যবহার করা যেতে পারে অনায়াসেই৷ 

বাড়িতেই বানানো ফেসিয়াল সিরামই হোক এই শীতে শুষ্ক ত্বকের জিয়নকাঠি

বাড়িতে বানানো ফেসিয়াল সিরামে কোনও ক্ষতিকর রাসায়নিকের ব্যবহার করা হয়নি বলে এটি ত্বকের জন্য নিরাপদ এবং বাজারে উপলব্ধ যে কোনও সিরামের তুলনায় অনেক সাশ্রয়ী। ভিটামিন ই ক্যাপসুল ত্বকের প্রয়োজনীয় পুষ্টি যোগাতে সাহায্য করে।

আতা গাছে তোতা নয় অমৃত

আতা গাছে তোতা পাখি। ছেলেবেলার ছড়ার মতো সত্য।  আতা ফলে  গ্লাইসেমিকের মাত্রা মাত্র ৫৪। তাই নিশ্চিন্তে ফলটি খেতে পারেন সুগারের রোগী।  

ডাস্ট অ্যালার্জি রুখতে অব্যর্থ টোটকা

পুজো শেষ আর সিজেন চেঞ্জের সময় শুরু। বাতাসে একটু একটু টান অনুভব হচ্ছে। ভোরের দিকে গায়ে হালকা চাদর না দিলে ঠান্ডা লাগছে। এই সময়ই ঠান্ডা-গরম এবং তার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে অ্যালার্জির নানা সমস্যা দেখা দেয়। যাঁদের ডাস্ট অ্যালার্জির সমস্যা রয়েছে তাঁদের খুব সাবধানে রাস্তাঘাটে চলাফেরা করতে হয়। কারণ, ধুলোবালি কোনও রকমে নাকে, মুখে ঢুকলেই শুরু হয়ে যাবে হাঁচি, কাশি! ঘর পরিষ্কারের কাজে হাত দেওয়া যায় না। এমনকি দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ থাকা কোনও ঘরে ঢুকলে বা পুরনো বইয়ের গন্ধ নাকে গেলেও কম দুর্ভোগ পোহাতে হয় না!