শিশু দিবস যায়, আসে। কিন্তু আমরা জানতে কী চাই কেমন আছে ওরা

দেশে পনেরো থেকে সতেরোর বাচ্চাদের কাজ করতে করতে অঙ্গহানি যে নতুন নয়, দেশের এক তৃতীয়াংশ শিশু অর্থাভাবে লেখাপড়া ছেড়ে দিতে বাধ্য হয় চতুর্থ শ্রেণী পার করবার আগেই।

ভয় জয়ের হিসেব-নিকেশ

জিনপরি,বেম্বদত্যি,ডিমনদের আমরা ছেলেবেলা থেকেই গল্পের বইতে পড়ি,ঠাকুমাদাদুর কাছে শুনি দখিনরায়ের গল্প। কখনো কি তা ভয়ের জন্ম দেয় না?আর দিলে তা প্রকাশিত না হয়ে যদি অবচেতনে থেকে যায়? তাহলে আসল ভূতভূতুম কোথায়?বাইরে?না আমাদের মনের ভিতর!

একা না দোসর

সত্যিই কি এক সন্তানের বাবা মায়ের মনস্তাত্ত্বিক গঠন দুই বা তার বেশি সংখ্যক সন্তানের বাবা মায়ের থেকে আলাদা হয়? 

রোগীকে সময় দিন

বিশ্বাস হারাবেন না।যেই ডালে বসে আছেন তাকে কাটলে কিন্তু আপনারই ক্ষতি

বাড়িয়ে দিন বন্ধুত্বের হাত

নয় নয় করে তেত্রিশ বছর হয়ে গেল,তবু কেউ কথা রাখলো না।১৯৮৬ সালে ঠিক হয়েছিল প্রতি বছর মে মাসের ২০ থেকে ২৭ তারিখ "বিশ্ব স্কিৎজোফ্রেনিয়া সপ্তাহ" হিসেবে পালন করা হবে।