কাল ওরিয়েন্টাল একাডেমিতে উৎসব, মেতে উঠবে পদ্মা পারের ঔরঙ্গাবাদ

annual-cultural_meet_in_oriental_accademy.png

শীতের প্রাক্কাল। হু হু বাতাস অনেক দূরে। মৃদু হাওয়ায় হৃদয় খুলছে, দুলছে প্রান্তিক শহর আওরঙ্গাবাদের উৎসবমুখর মানুষ। কীসের উৎসব? বই আর বিদ্যার।আবহমান সংস্কৃতির। উৎসবের আয়োজক শিবম এডুকেশনাল অ্যান্ড সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার সোসাইটি।

শিবম পরিচালিত সুপরিচিত একটি  স্কুল। নাম, ইংলিশ মিডিয়াম ওরিয়েন্টাল অ্যাকাডেমি। ছাত্রছাত্রীর সংখ্যা ৫৩৮। স্কুলটি নবীন নয়। প্রাণচাঞ্চল্যে নবীনের প্রতীক। নিষ্ঠাবান শিক্ষক-শিক্ষিকা শুধু বইয়ের মধ্যে, তথাগত পঠন-পাঠনের মধ্যে পড়ুয়াদের আটকে রাখেন না। সময়-সুযোগে, খেলাধুলো, গান, কবিতা, ছবি আঁকা---সংস্কৃতির এরকম বহুমুখী কর্মকান্ডে জড়িয়ে দেন, ছড়িয়ে দেন ছাত্রদের। প্রাণের আনন্দে নিকটস্থ পদ্মার স্রোতের মতো ছাত্ররা কুলকুল ধ্বনিতে মেতে ওঠে, মাতিয়ে দেয় ঔরঙ্গজেবের স্মৃতি-ছোঁয়া শহরকে। 

এবার স্কুলটির বার্ষিক সংস্কৃতিক উৎসব ২০১৯-এর সূচনা হবে আগামীকাল, ৩০ নভেম্বর। প্রাঙ্গনে, প্রাঙ্গনের বাইরে। উদ্ধোধন করবেন---শিবম শিল্পগোষ্ঠীর প্রাণপুরুষ ও মন্ত্রী জাকির হোসেন। অনুষ্ঠানে হাজির থাকবেন মুর্শিদাবাদের ডি এম, পুলিস সুপার আর আলিগড় বিশ্ববিদ্যালয়ের মুর্শিদাবাদ-ক্যাম্পাসের ডাইরেক্টর আমির জাফর।

মুর্শিদাবাদে, এই ওরিয়েন্টান অ্যাকাডেমিই সিবিএসসি অনুমোদিত একমাত্র বিদ্যানিকেতন। নিয়মিত পঠন-পাঠনে যেমন একনিষ্ঠ তার অভিমুখ, তেমনি খেলার সঙ্গে খেলা, আর এক সংস্কৃতির সঙ্গে আরেক সংস্কৃতির সেতু তৈরিতে এটি এক অন্যরকম প্রতিষ্ঠান। 

জাকির হোসেন আওরঙ্গাবাদের ভূমিপুত্র। কর্মঠ মন্ত্রী। জনসেবক। বিদ্যুৎসাহী। তাঁর এসব পরিচয় অজানা নয়। বহতা সংস্কৃতির সঙ্গে তাঁর নিবিড় আত্মীয়তাও  তাঁর ব্যক্তিত্বের ছায়াসঙ্গী। জাকির চিত্তজয়ী সমাজসেবী। তাঁর আপাতত গম্ভীর মুখের আড়ালে যে আলোরেখা জেগে থাকে, তা উদ্ভাসিত হয়ে ওঠে শিবম সোসাইটি পরিচালিত প্রতিটি শিক্ষাঙ্গনে। ওরিয়েন্টাল আকাডেমি এক্ষেত্রে একটু আলাদা। স্বতন্ত্র তাঁর ক্যাম্পাসের বৈশিষ্ট। নাচে, গানে, কবিতায়, কথায় এ এক নৃত্যরত, অভিনব শিক্ষালয়। তারই সরব বর্হিপ্রাকাশ দেখা যাবে শনিবার, সূর্যমুখী ছেলেমেয়েদের  সৃষ্টি সুখের অভিব্যক্তিতে।

Fri 29 Nov 2019 17:35 IST | ওয়েব ডেস্ক