কন্ঠরোধে নৃশংস অত্যাচার, সারমেয়র মুখে রেডটেপ !‌ 

/kerala-dog-with-its-mouth-sealed-by-tape-for-2-weeks

কেরলের হস্তিনী হত্যার ঘটনার প্রতিবাদে গোটা দেশ উত্তাল। এমন নৃশংস ঘটনার সকলেই নিন্দায় সরব হয়েছে। এই  ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই সামনে এল আরেক মর্মাহত ছবি। পশু নির্যাতন থেকে বিরত থাকছে না কেরলবাসি। পশু নির্যাতনের এই ছবি সামনে আসায় কেঁপে উঠছে দেশ। এমনও হতে পারে?‌

দু’‌সপ্তাহ আগে থিসুরের পশু সুরক্ষা ও নিরাপত্তা পরিষেবা কেন্দ্রের একটি ফোন আসে। যেখানে বলা হয়, উল্লুরে একটি কুকুর রাস্তায় মুখ বাঁধা অবস্থায় ঘুরে বেড়াচ্ছে। খেতে পারছে না, জলও মুখে নিতে পারছে না। জানানো হয়, একটি লাল রঙের টেপ দিয়ে কুকুরের মুখ আটকে দেওয়া হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে এই অবস্থায় থাকার কারণে কুকুরটি ভয়ানক যন্ত্রণায় রয়েছে।

সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে যায় উদ্ধারকারী দল। সেই দলের এক  সদস্য জানিয়েছেন, কুকুরের বয়স তিন বছর। তাঁরা প্রথমে কুকুরটিকে দেখে মনে করেছিলেন, তার মুখ বাঁধা একটি টেপ দিয়ে। কিন্তু না, পরে পরীক্ষা করে দেখা যায়, একাধিক টেপ দিয়ে শক্ত করে কুকুরের মুখ বাঁধা রয়েছে। এতটাই শক্ত করা হয়েছে যে কুকুরটির মুখে টেপটি বসে গিয়েছে। গভীর ক্ষত তৈরি হয়েছে। এই কারণে হয়ত দীর্ঘদিন কুকুরটি খেতেও পারেনি। খুলে দেওয়ার পর চিকিৎসা শুরু করার মুহূর্তেই কুকুরটি নাকি একসঙ্গে দু’‌লিটার জল খায়। চিকিৎসায়ও সাহায্য করে সে। কিন্তু এমন ভাবে শক্ত করে তার মুখ বাঁধা ছিল যে চামড়া কেটে মাংস বেরিয়ে এসেছিল মুখের।

আহত অবস্থায় উদ্ধার করার পর কুকুরটিকে নিয়ে যাওয়া হয় হাসপাতালে। সেখানে কুকুরটির চিকিৎসা করা হয়। প্রাথমিকভাবে অ্যান্টিবায়োটিক দেওয়া হয়। আপাতত সেটি সুস্থ অবস্থায় আছে। কারণ, কুকুর দীর্ঘদিন অভুক্ত থেকেও বেঁচে থাকতে পারে। তবে উদ্ধারকারী দলের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, সম্ভবত একটি পোষা কুকুর, কারণ এর কলার আছে। মনে করা হচ্ছে, ক্রমাগত ডাকার অপরাধেই তাঁর মুখ বেঁধে এমন শাস্তি দিয়েছে কেউ!‌

Tue 9 Jun 2020 17:37 IST | আরম্ভ ওয়েব ডেস্ক