জ্যাকসনের সঙ্গে মোলাকাত, স্মৃতিচারণে রহমান

মাইকেল জ্যাকসনের সঙ্গে পাক্কা দুই ঘণ্টা আড্ডা দিয়েছিলেন এ আর রহমান।

শৈশব স্মৃতিতে

গ্রাম আর শহর মিলে আছে তাঁর কবিতা যাপনের চাঞ্চল্য, সজল ও সুদূঢ় উচ্চারণে।

মনপ্রেমিকের আলো

আকাশে মেঘ জমছে, চারদিক কালো হয়ে আসছে, কালোর গায়ে বেজে উঠছে বেদনা...

মুঘল সম্রাট নুর-উদদিন মুহাম্মদ জাহাঙ্গির-এর আত্মকথা

দোয়াজ-দা সালা জাহাঙ্গিরি-রই ভাষান্তরিত এই 'স্মৃতির দস্তাবেজ'।সম্রাট জাহাঙ্গিরের আত্মকথন, জীবনদর্শন, আত্মসমালোচনা পেশ করতে গিয়ে মূল পাণ্ডুলিপিকেই 'মডেল' ভাবা হয়ছে

শান-এ-আজম

পবিত্র কোরান তাঁর যেমন কণ্ঠস্থ,  ঠিক তেমনি ভাগবত গীতায়ও তাঁর অগাধ পাণ্ডিত্য। গীতার শ্লোক হোক কোরানের বাণী হোক, বাইবেলের পংক্তি  হোক — সব ব্যাপারেই সাবলীল তাঁর উদার আগ্রহ। কোথাও কোনো জড়তা নেই  প্রয়োজনে নির্দিষ্ট,  প্রাসঙ্গিক অংশ শুনিয়ে দিয়ে ব্যাখ্যা করে দেবেন সাম্প্রতিক অথবা অতীতের পরিস্থিতি

প্রয়াত, লেখক নিতাই চক্রবর্তী

সুপরিচিত লেখক, অনুবাদক নিতাই চক্রবর্তী প্রয়াত হয়েছেন। বয়স হয়েছিল ৭০-এর ওপর। দীর্ঘদিন ধরে শ্বাসকষ্ট ও বাত জনিত সমস্যার বিরুদ্ধে লড়তে হয়েছে তাঁকে। একসময় চাকরি করতেন প্রতিষ্ঠিত চা বিপনন সংস্থায়। দুরারোগ্য অসুখ বাধা হয়ে দাঁড়ায়। চাকরি ছেড়ে লেখালেখির সঙ্গে সংযোগ আরও বাড়িয়ে তোলেন তিনি। মৌলিক ছোটগল্পের পাশাপাশি হিন্দি আর অসমিয়া থেকে গল্প উপন্যাস অনুবাদ করতে থাকেন। মাতৃভাষা ছাড়াও ইংরেজি, হিন্দি ও অসমিয়া ভাষা সাহিত্য পাঠ এবং অনুবাদে সিদ্ধহস্ত নিতাই অভিধানের সাহায্যে অসমিয়া রপ্ত করেছিলেন। হোমেন বরগোহাঞি ও সৌরভ কুমার চালিহার মতো মননশীল লেখকদের সঙ্গে নতুন করে পরিচয় করিয়ে দিলেন বাঙালি

অধ্যাপক হোসেনুর রহমানের মৃত্যুতে

উনিশ শতকের নবজাগরণের দ্বিতায়ার্ধে বলার শৈলী আর উপযোগিতাবাদের মধ্যে যে সংযোগ আর সমন্বয় তৈরি হয়েছিল, হোসেনুরের অর্জিত মননে, মননের ব্যপ্তি আর ব্যক্ততায় জড়িয়ে রয়েছে  এর মনোহর উত্তরাধিকার।

এই তাঁর জীবনসত্য

একজন আদর্শ শিক্ষক হিসেবে তিনি তৈরি করে গেছেন তাঁর সরাসরি ছাত্রের এমন এক বুধমণ্ডলী যাঁরা বাঙালি ভুবনে, বাঙালি চেতনায় মননশীলতার একটি ভিন্ন ধারাকে বহন করে যাবেন আরো অনেকদিন।

স্মরণে রাখতে হবে

| বিমান বসু |

কবিতার, বিশেষ করে সাহিত্য জগতের এক উজ্জ্বল জ্যোতিষ্ক ছিলেন শঙ্খ ঘোষ। ছিলেন বিশিষ্ট রবীন্দ্র বিশেষজ্ঞ। সাহিত্যে তাঁর বিপুল অবদান চিরদিন মানুষ মনে রাখবে। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতার সময়ে, পরেও, গণতন্ত্রের পক্ষে, স্বৈরতন্ত্রের বিরুদ্ধে তাঁর অবস্থানের কথা আজ আরও বেশি করে স্মরণে রাখতে হবে। বরাবর তাঁর প্রতিবাদী কন্ঠস্বর আমরা পেয়েছি, শুনেছি আমরা। সাম্রাজ্যবাদ বিরোধিতা কিংবা শান্তি আন্দোলনে সবসময় সক্রিয় এবং শোষণ, অত্যাচারের বিরুদ্ধে বাঙ্ময় ছিলেন তিনি। অসুস্থ অবস্থায়ও সাম্প্রদায়িকতা বিরোধী মহামিছিলে যোগ দিয়েছেন। বিবেক আর প্রজ

মানবতার দীপ্ত প্রতিনিধি

 

| আকবর আহমেদ |


" নিভন্ত এই চুল্লিতে মা
একটু আগুন দে,
আরেকটু কাল বেঁচেই থাকি বাঁচার আনন্দে।"