দেশপ্রেমিকদের স্বপ্নের নায়ক

নবাব সিরাজউদৌলার দেশপ্রেম আর আত্মত্যাগ বাঙালি ভোলেনি, ভুলবে না। দেশ আর জাতি যত দিন, সিরাজ ততদিন চির আয়ুষ্মানের মতো জেগে থাকবেন।  আজ সিরাজের ২৯৩ তম জন্মদিন। মহান পূর্বপুরুষকে কূতজ্ঞ চিত্তে শ্রদ্ধা নিবেদন করলেন তাঁরই রক্তজাত নবম-পুরুষ নবাবজাদা আলি আব্বাস উদ্দোলা।  

তার বুকে ছিল বাংলা

অনেকের অভিযোগ, বাংলার জন্য প্রণব বাবু বিশেষ কিছু করতে চাইতেন না। কথাটা ঠিক নয়। বিধাতা যার কাঁধে দেশ পরিচালনার দায়িত্ব অর্পণ করেছিল, এমন একজন শীর্ষারোহী কেন কেবল বাংলার কথা ভাববেন? দ্বিতীয়ত, বাংলার জন্য কিছু করেননি, করতে চাইতেন না, এই অভিযোগ ঠিক নয়।

গণতন্ত্রের গঙ্গোত্রীতে আমি 

২০১৮, আরম্ভ পত্রিকার উৎসব সংখ্যায় প্রকাশিত হয়েছিল এই লেখাটি।

শ্রদ্ধার্ঘ্য

প্রণববাবুর কাছে আমরা নানাভাবে ঋণী হয়ে রইলাম। ঋণশোধের সীমাবদ্ধতা পীড়া দিচ্ছে। আরম্ভ পত্রিকার প্রায় প্রতিটি আব্দারকে সসম্মানে প্রশ্রয় দিয়েছেন তিনি। আমাদের একাধিক আয়োজনে যোগ দিয়ে উৎসাহিত করেছেন।

রাজনীতির শিক্ষক

ভারতীয় গণতন্ত্রের অন্যতম উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত। গোটা দেশ এবং বিশ্ব প্রাজ্ঞ, অভিজ্ঞ এবং আত্মসচেতন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখ্যাপাধ্যায়ের নিরপেক্ষ ভূমিকা দেখেছে।

বোধিবৃক্ষ

ব্যক্তিপ্রতিভার বিকাশে, প্রতিটি উত্তরণের পূর্ণ হয় ইতিহাস ছোঁয়ার স্বপ্ন। মিরাটির বঙ্গসন্তান প্রণব মুখার্জির হয়ে ওঠা, ক্রমাগত সর্বভারতীয় এবং আন্তর্জাতিক রাজনীতিতে তাঁর উজ্জ্বল বিচরণ সমাজের এরকমই এক আকাঙ্ক্ষা পূরণ। 

প্রণবদাই প্রণবদার তুলনা

বিশিষ্টদের স্মৃতিচারণে প্রণব মুখোপাধ্যায়

স্মৃতিঘরে নিমাই-এর নিঃশব্দ প্রবেশ

পাঠকের নিকটতম আত্মীয়ের বিয়োগে পূর্ণচ্ছেদ মিষ্টি সরল ঘরাণায়।

নিভে গেল আরেকটি অবলম্বন 

করোনার আতঙ্ক, লকডাউনের আরোপিত বাড়াবাড়ি আর ঘূর্ণিঝড়ের ধ্বংসাবশেষের মধ্যে, কবির মৃত্যুর খবর বাড়িয়ে তুলল আরও নিস্তব্ধতা।

প্রকৃত শূন্যতা

বিদ্যাচর্চা ও অ্যাক্টিভিজমের যে রসায়ন দিয়ে তৈরি দেবেশ রায়, তা আজকের যুগে নেই বললেই চলে।