সিবিআই পৌঁছনোর আগেই ‘শান্তিনিকেতন’ থেকে বেরিয়ে এলেন মমতা 

রুজিরাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৮ সদস্যের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দার দল এখন হরিশ মুখার্জি রোডে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়ি ‘শান্তিনিকেতন'-এ

cbi-interrogates-abhishek-banerjees-wife-rujira-mamata-banerjee-reach-nephew's-house-shantiniketan.jpg (8

কয়লা-কাণ্ডে তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্ত্রী রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায়াককে জেরা শুরু করে দিয়েছে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা (সিবিআই)। সকাল ১১টা বেজে ৩৫ নাগাদ মঙ্গলবার হরিশ মুখার্জি রোডে তাঁদের বাড়ি ‘শান্তিনিকেতন’-এ পৌঁছে গেছেন গোয়েন্দারা। রুজিরা তাঁদের তদন্তে সবরকম ভাবে সহযোগিতা করছেন বলে জানা গিয়েছে।

সিবিআই ‘শান্তিনিকেতন’-এ ঢোকার মিনিট চারেক আগেই সেখান থেকে বেরোতে দেখা যায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। নবান্ন যাওয়ার পথে সেখানে ঢোকেন তিনি। মিনিট দশেক ছিলেন। বেরনোর সময় হাত ধরে গাড়ি পর্যন্ত তাঁকে এগিয়ে দিতে দেখা যায় অভিষেক-কন্যাকে। 

রুজিরাকে জেরা করতে আইনজীবী-সহ ‘শান্তিনিকেতন’-এ সিবিআই আধিকারিক উমেশ কুমার-সহ মোট ৯ জন আধিকারিক রয়েছেন। এর মধ্যে আইনি উপদেষ্টা দল (লিগ্যাল অ্যাডভাইসরি টিম)-এর ৩ আইনজীবী। তাঁদের মধ্যে ২ জন দিল্লির এবং ১ জন কলকাতার। অতিরিক্ত সুপারিনটেন্ডেন্টের নেতৃত্বে সিবিআইয়ের ৬ জন অফিসার থাকার কথা। এর মধ্যে ২ জন মহিলা। রুজিরার বয়ান ভিডিয়ো রেকর্ড করা হবে বলেও সূত্রের খবর। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তৈরি করা হয়েছে ৮ পাতার প্রশ্ন তালিকা। জানতে চাওয়া হবে রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাগরিকত্ব নিয়ে। তাঁর কটি পাসপোর্ট রয়েছে, অভিষেক-পত্নী কোনও রেজিস্টার্ড সংস্থার সঙ্গে যুক্ত কিনা, কোনও সংস্থার পদাধিকারী কিনা তাও জানতে চাওয়া হবে। খবর। 

প্রসঙ্গত সিবিআইয়ের অভিযোগ, কয়লা-কাণ্ডে অভিষেকের স্ত্রী-র ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে সন্দেহজনক লেনদেন হয়েছে। এ ব্যাপারে রুজিরার বয়ান চান তাঁরা। রুজিরার বিরুদ্ধে ঠিক কী অভিযোগ, তা স্পষ্ট ভাবে জানাননি কেন্দ্রীয় গোয়েন্দারা। বরং রুজিরাকে ‘সাক্ষী’ হিসেবে জিজ্ঞাসাবাদ করতে চান বলে জানিয়েছেন তাঁরা। তবে তাঁর সঙ্গে কেন দেখা করতে চাইছেন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দারা, তা তাঁর বোধগম্য হচ্ছে না, তবে তদন্তে সবরকম সহযোগিতা করতে রাজি বলে গতকালই চিঠিতে জানিয়েছেন রুজিরা।

সম্প্রতি অভিষেকের দায়ের করা একটি মানহানি মামলায় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের বিরুদ্ধে সমন জারি করে সাংসদ এবং বিধায়কদের জন্য গঠিত বিধাননগরের বিশেষ আদালত। শাহের ঠিকানা ভুল থাকায় পরে যদিও সমন প্রত্যাহার করা হয়, তবে শাহের বিরুদ্ধে সমন জারি হওয়ার পরই রুজিরাকে সিবিআইয়ের নোটিস, এই দুইয়ের মধ্যে কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের ‘রাজনৈতিক প্রতিহিংসা’ লুকিয়ে রয়েছে বলে দাবি করছে তৃণমূল।

এরই মধ্যে সোমবার অভিষেকের শ্যালিকা মেনকা গম্ভীরকেও আনন্দপুর বানইতে সিবিআই হানা দিয়ে বেশ কয়েক কিছু ক্ষণ জিজ্ঞাসাবাদ করেন।

Tue 23 Feb 2021 12:39 IST | ওয়েব ডেস্ক