রেস্তোরার পর অ্যাপ ক্যাবেও বিশেষ 'জামাইষষ্ঠী' প্যাকেজ

Celebrate-Jamai-Sashti-app-cab-gives-special-offer-on-this-occasion

এই প্রথমবার জামাইষষ্ঠী উপলক্ষ্যে ছুটি দিয়েছে রাজ্য সরকার। কিন্তু, শ্বশুরবাড়িতে পৌঁছবেন কীভাবে জামাইরা?  সংক্রমণ কমাতে বন্ধ গণ পরিবহণ। সমস্যার সমাধানে  বিশেষ প্যাকেজের কথা ঘোষণা করেছে অ্যাপ ক্যাব অপারেটরদের একাংশ। অনলাইন ক্যাব অপারেটর্স গিল্ডের 'বিশেষ প্যাকেজ'। ৬০ কিলোমিটার দূরত্বের মধ্যে গাড়ি যাতায়াত করবে, এমন শর্তে ১০ ঘণ্টার জন্য টানা বুক করতে হলে দেড় হাজার টাকার প্যাকেজ। আর ১০ কিলোমিটার দূরত্বে পৌঁছে দিতে প্যাকেজ ৩০০ টাকার। স্যানিটাইজ করা গাড়ি পৌঁছে যাবে আরোহীর বাড়িতে। সেই জন্য ৮৯১০০৭৯২১২ অথবা ৯৮০৪৪৫৮০৪৫ নম্বরে ফোন করে গাড়ি বুক করতে হবে। মঙ্গলবারই ওই নম্বরে ফোন করে অনেকেই জামাইষষ্ঠীর জন্য গাড়ি বুক করেছেন।

করোনা কালের সতর্কতার সঙ্গে জামাইষষ্ঠীর ভূরিভোজকে আবার চমৎকার ভাবে মিশিয়ে দিয়েছে নিউ টাউন কলকাতা ডেভেলপমেন্ট অথরিটি বা এনকেডিএ-র নিজস্ব রেস্তোরাঁগুলো। তাদের ঘোষণা- 'ভ্যাকসিন থাকলে নেওয়া/ জমবে জামাইষষ্ঠীর খাওয়া!' মানে, করোনার টিকা নেওয়া থাকলে ওই সব রেস্তোরাঁয় খাবারের বিলের উপর ছাড় মিলবে ২০ শতাংশ! এখনকার জামাইদের সবাই যে ষষ্ঠীর কব্জি ডুবিয়ে খাওয়া শ্বশুরবাড়িতে খান, এমনটা নয়। শ্বশুর-শাশুড়িরা তাঁদের রেস্তোরাঁয় ডেকেও খাওয়ান। করোনা পরিস্থিতিতে আত্মশাসনের মধ্যে গত কয়েক দিন যাবৎ রেস্তোরাঁগুলো বিকেল ৫টা থেকে রাত ৮টা, এই তিন ঘণ্টার জন্য খোলা থাকছিল। আজ, বুধবার থেকেই রেস্তোরাঁগুলো দুপুর ১২টা থেকে রাত ৮টা- এই ৮ ঘণ্টার জন্য খুলছে। মঙ্গলবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রেস্তোরাঁগুলোর খোলা থাকার সময়সীমা বাড়ানোর কথা ঘোষণা করার পরেই রেস্তোরার কর্ণধার ও কর্মীদের সাজো সাজো রব। কারণ, প্রথমে ঠিক ছিল, জামাইষষ্ঠীর ভূরিভোজের খাবার কেবল হোম ডেলিভারি করা হবে। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণার পর একেবারে শেষ মুহূর্তে আয়োজন করা হচ্ছে বসে খাওয়ারও।

বাঙালি খাবারের একটি রেস্তোরাঁ- মালিক জানিয়েছেন, 'রেস্তোরাঁয় বসে খাওয়া এবং বাড়িতে জামাইকে আপ্যায়ন করার জন্য হোম ডেলিভারি,  দু'রকম ব্যবস্থাই তারা রেখেছেন।' মেনুতে রাখা হয়েছে আফগানি চিকেন কাটলেট, কষা মাংস, চিংড়ির মালাইকারি, ভেটকি পাতুরির মতো সব পদ।  হোম ডেলিভারির জন্য একটা টিম তো আমাদের ছিলই। বুধবার জামাইষষ্ঠীর দিন ওঁদের উপর অনেক দায়িত্ব। তবে শ্বশুরবাড়ি হোক বা রেস্তোরাঁ, করোনা কালে জামাইষষ্ঠীর খাওয়া কি জরুরি বা অত্যাবশ্যকীয় পরিষেবার মধ্যে পড়ে?

পরিবহণমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম বলছেন, 'জামাইষষ্ঠী দীর্ঘদিনের অনুষ্ঠান। ফলে, কেউ গাড়ি বুক করে জামাইষষ্ঠী করতে গেলে তা নিয়ে আপত্তি থাকার কিছু নেই। পুলিশ এই বিষয়টিকে মানবিক ভাবেই দেখবে। তবে ক্যাব বুক করুন বা নিজের গাড়িতে যান, শারীরিক দূরত্ব ও অন্যান্য করোনা বিধি মানতে হবে।'

Wed 16 Jun 2021 13:32 IST | আরম্ভ ওয়েব ডেস্ক