'একুশে বই উৎসব', ভাষাদিবসে কলকাতায় বইমেলা

21-se-boi-utsab-will-be-organised-by-booksellers-and-publishers-guild-from-february-twentyone

ওপার বাংলার ‘একুশে গ্রন্থমেলা’র আদলে এবার কলকাতায় হচ্ছে ‘একুশে বই উৎসব’। আগামী ২১ তারিখ, রবিবার থেকেই দক্ষিণ কলকাতার তালতলা মাঠে এই মেলা চলবে টানা আটদিন। প্রতি বছর ‘কলকাতা আন্তর্জাতিক পুস্তকমেলার’ মতো একুশে বই উৎসবেরও উদ্যোক্তা পাবলিশার্স অ্যান্ড বুকসেলার্স গিল্ড । বিশেষ সহযোগিতায় রয়েছে কেএমডিএ ও যোধপুর পার্ক উৎসব কমিটি।

২০০৯ সালে ময়দান থেকে আন্তর্জাতিক পুস্তক মেলা সরে যাওয়ার পর এই প্রথম দক্ষিণ কলকাতায় বইমেলা হচ্ছে। গিল্ডের সাধারণ সম্পাদক সুধাংশুশেখর দে জানিয়েছেন, 'একুশে বই উৎসবের উদ্বোধনে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে গ্রন্থকার তথা মুখ্যমন্ত্রীকে। মোট ৭০টি স্টল হবে। কলকাতার নামী প্রকাশন সংস্থা যেমন থাকবে তেমনই ক্ষুদ্র ও মাঝারি বহু প্রকাশক থাকবে স্টলে। প্রতিদিন দুপুর দু’টো থেকে রাত ন’টা পর্যন্ত বইমেলা খোলা থাকবে।'

গিল্ডের সভাপতি ত্রিদিব চট্টোপাধ্যায়ের বলেছেন, এবার থেকে প্রতি বছর ভাষা শহিদদের শ্রদ্ধা জানিয়ে তালতলা মাঠেই পুস্তক মেলা হবে। এ বছর করোনা আবহে আন্তর্জাতিক বিমান চলাচল বন্ধ থাকায় বিদেশের কেউ অংশগ্রহণ করতে পারছেন না, তবে একুশে বই উৎসবের নানা সেমিনারে বাংলাদেশ উপদূতাবাসের আধিকারিক ও অন্যান্য বিশিষ্টরা অংশ নেবেন।

আমফান ও ভাইরাস ক্ষতিগ্রস্ত প্রকাশকদের সাহায্য করার পাশাপাশি পুস্তকপ্রেমীদের কাছে গ্রন্থ পৌঁছে দিতে এই নয়া বইমেলা।  বইমেলার আলোচনার বিষয় ঘিরে বাংলা ভাষার উপর আক্রমণ ও ভাষা রক্ষার চেষ্টার নেপথ্যে রাজনৈতিক রং দেওয়ার চেষ্টা করেছেন কেউ কেউ। কিন্তু গিল্ডের সভাপতি স্পষ্ট জানিয়েছেন, 'ভাষাশহিদদের শ্রদ্ধা জানিয়ে মাতৃভাষা এবং নানা শব্দের অপব্যবহার নিয়েই আলোচনা হবে। এর মধ্যে কোথাও কোনও রাজনীতি নেই। বাংলা সাহিত্য ও পাঠকরাই এখানে মূল অবলম্বন।'
অনুষ্ঠানসূচি  ২২ ফেব্রুয়ারি থাকছে – বাংলা ভাষা ও সংস্কৃতি কি বিপন্ন? ২৩ শে মিডিয়া কি বাংলা সাহিত্যের পাশে আছে? ২৪ শে ‘লেখক ও প্রকাশক কি যথাযথ নীতি মেনে চলছেন?’ ২৫ শে ‘কবিতার লেখক বাড়ছে, নাকি পাঠক বাড়ছে?’ ২৬ তারিখ ‘বাংলা ভাষা কি পাল্টে যাচ্ছে?’ ২৭ শে, ভাষার জন্য সংগ্রাম। ২৮ শে ‘ছোট গল্পের দিন কি শেষ?’
 

Fri 19 Feb 2021 17:21 IST | ওয়েব ডেস্ক