সিভিল সার্ভিস পরীক্ষায় বিরল সাফল্য । বরাকের কৃতী সন্তান হাসানুজ্জামানকে বিডিওয়াইএফ-এর সংবর্ধনা।

BDYF greets Hasanuzzaman Chowdhury, the only candidate from Assam who has successfully passed the civil service examination of 2021

সিভিল সার্ভিসে উত্তীর্ণ হয়ে বিরল নজির স্থাপন করেছেন বরাক উপত্যকার কৃতী সন্তান হাসানুজ্জামান চৌধুরী। তিনিই এবার, আসামের একমাত্র সফল প্রার্থী। 

হাসানুজ্জামানের বাবা সেলিম চৌধুরী ১৯৭০ সালে, মাধ্যমিকের মেধাতালিকায় প্রথম হয়েছিলেন, গ্রামের স্কুল থেকে। সেলিম ইঞ্জিনিয়ারিং পাস করে যোগ দেন  সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডে। ধাপে ধাপে প্রতিষ্ঠিত হয় তাঁর অসাধারণ দক্ষতা। চিফ ইঞ্জিনিয়ার হয়ে অবসর গ্রহণ করেন কয়েক বছর আগে। সেলিমের বাবাও ছিলেন ইঞ্জিনিয়ার। ব্রিটিশ আমলের চাকরিজীবী।এরকম শিক্ষিত, অভিজাত পরিবারের সন্তান হাসানুজ্জামানও ইঞ্জিনিয়ারিং-এর কৃতী ছাত্র। সিভিল সার্ভিস পরীক্ষায় তাঁর কৃতিত্বে খুশি বরাক উপত্যকা। পুলকিত পিতৃপুরুষের গ্রাম লক্ষীরবন্দ। এই গ্রামে শিক্ষিতের হার  ১০০ শতাংশ। নিরক্ষরতাহীন গ্রামে শিক্ষার আলো ছড়িয়ে পড়ে উনিশ শতকের শেষের দিকে এবং বিশ শতকের তৃতীয় দশকেই লেখাপড়ায় অগ্রনীয় ভূমিকা পালন করেন মেয়েরা। নুর আবজান বিবি গড়ে তোলেন মেয়েদের স্কুল। তখন থেকেই এই গ্রামে, আশপাশের অন্যান্য গ্রামেও নারী শিক্ষার জাগরণ শুরু হয়। এ রকম প্রগতিশীল আর ঐতিহ্য সচেতন গ্রামের প্রবাহে যাঁর চিন্তা বিবর্তিত আর সমৃদ্ধ, পেশায় আর সর্ব ভারতীয় প্রতিযোগিতায় নজির স্থাপন করে তিনি প্রমাণ করলেন যে ব্যক্তিপ্রতিভা যেমন সম্মুখপ্রবন, তেমনি ঐতিহ্যপন্থী।  প্রসঙ্গত বলা দরকার, হাসানুজ্জামানের একজন ঠাকুরদা, আব্দুর রেজাক চৌধুরী ইংরেজি শিক্ষিত হয়েও ১৯৩৮ সালে বুক ফুলিয়ে বলেছিলেন, ব্রিটিশের অধীনে চাকরি করব না। স্বাধীনভাবে ব্যবসা করব। বস্তুত সেটাই করে দেখিয়েছিলেন তিনি ।

হাসানুজ্জামানের ধমনিতেও পারিবারের ঐ জেদ ও আপোসহীনতা প্রবাহমান। প্রতিভা তাঁর উদীয়মান এবং অনুকরণযোগ্য। সম্প্রতি তাঁর বাসভবনে হাজির হয়ে তাঁকে সংবর্ধনা জানাল বরাক ডেমোক্রেটিক যুব ফ্রন্ট। যুবফ্রন্টের মুখ্য আহবায়ক কল্পনার্ভ গুপ্ত ও বিডি এফ-এর প্রাণ পুরুষ প্রদীপ দওরায় বলেছেন, হাসানুজ্জামানের সাফল্যে বরাকবাসী গর্বিত। তিনি প্রামান করলেন, ইচ্ছাশক্তি ও অধ্যাবসায়ের বিকল্প নেই। তাঁর সাফল্য বরাকের যুবক যুবতীদের কাছে দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। বরাকের সুপরিচিত শিল্পদ্যোগী ও সংস্কৃতিকর্মী স্বর্ণালী চৌধুরী বলেছেন, হাসানুজ্জামানের সাফল্যে আমরা গর্বিত। তাঁর স্থাপিত দৃষ্টান্তে বরাকের যুবক-যুবতীরা অনুপ্রাণিত বোধ করবেন। বিডিএফ-এর সংবর্ধনার খুশি হাসানুজ্জামান। বিনম্র ভাষায় ধন্যবাদ জানিয়ে বলেছেন, সিভিল সার্ভিস পরীক্ষায় সাফল্যের জন্য আমি, আমার পরিবার ও  প্রতিবেশীদের প্রতি কৃতজ্ঞ। তাঁদের ১০০ শতাংশ সহযোগিতা আর অনুপ্রেরনা আমাকে নিরন্তর উৎসাহ জুগিয়েছে। 

Sat 9 Oct 2021 14:01 IST | আরম্ভ ওয়েব ডেস্ক